করোনা নিয়ে সব তথ্য লোপাট করেছে চিন, ১৫ পাতার গোয়েন্দা রিপোর্ট প্রকাশ্যে

ওয়াশিংটন : মানুষের থেকে মানুষে করোনা ভাইরাস ছড়ানো নিয়ে ভুল তথ্য দিয়েছে চিন। এমনকি যে সব চিনা গবেষক এই ইস্যুতে মুখ খুলতে গিয়েছেন, তাদের কার্যত হাপিশ করে দেওয়া হয়েছে। এমনই বিস্ফোরক দাবি করছে ১৫ পৃষ্ঠার গোয়েন্দা রিপোর্ট।

ওই গোয়েন্দা রিপোর্টের দাবি করোনা ভাইরাস মানুষ থেকে মানুষে ছড়ায় না। এমনকী যে সব দেশ করোনা ভাইরাসের ভ্যাকসিন বের করার চেষ্টা চালাচ্ছে, তাদেরও ভুল পথে চালনা করছে চিন।

উল্লেখ্য এই গোয়েন্দা রিপোর্ট অনিচ্ছাকৃত ভাবে প্রকাশিত হয়েছে। ফাঁস হয়ে যাওয়া ওই তথ্যে চিনের বিরুদ্ধে একাধিক অভিযোগ তোলা হয়েছে। জানানো হচ্ছে এই ফাঁস হয়ে যাওয়া রিপোর্ট তৈরি করেছে ফাইভ আইজ সিকিওরিটি অ্যালায়েন্স।
রিপোর্টে বলা হয়েছে, বেজিং-এর গোপন তথ্য প্রকাশিত হয়ে গিয়েছে।

রিপোর্ট বলছে চিন সরকার করোনা ভাইরাস সংক্রান্ত আসল তথ্য চাপতে চেয়েছে। যারাই এই তথ্য প্রকাশ করতে চেয়েছে, তাঁদের মুখ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। এমনকী ইন্টারনেট থেকেও এই সংক্রান্ত তথ্য মুছে ফেলার অভিযোগ উঠেছে চিনের বিরুদ্ধে।

ফাইভ আইজের প্রকাশিত রিপোর্ট অনুযায়ী চিনের এই তথ্য চেপে যাওয়ার ফলেই ও ভুল তথ্য সরবরাহ করার ফলেই গোটা বিশ্বকে করোনা মহামারী দেখতে হচ্ছে। অন্যান্য দেশকে এভাবে ফল ভুগতে হচ্ছে। করোনা ছড়িয়ে পড়ার আগেই যদি চিন গোটা বিশ্বকে সতর্ক করত, তবে এই পরিস্থিতি হত না। ব্রিটেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, কানাডা, অস্ট্রেলিয়া ও নিউ জিল্যান্ডের সম্মিলিত প্রয়াসে তৈরি ফাইভ আইজ জানাচ্ছে শি জিনপিং সরকার গোটা অব্যবস্থার জন্য দায়ি।

এই সংস্থার অভিযোগ খুব গোপনে প্রত্যেকটি তথ্য সরিয়েছে চিন সরকার। যাতে কোনও দেশ তা হাতে না পায়।

এদিকে, এইঅ একই অভিযোগ তুলে করোনা মহামারীর ঘটনায় চিনের বিরুদ্ধে হল প্রতারণার মামলা করেছে মার্কিন স্টেট মিসৌরি। ফেডেরাল কোর্টে মামলা দায়ের করেন সেখানকার অ্যাটর্নি জেনারেল এরিক স্মিত। মামলায় বলা হয়েছে, একাধিক মৃত্যু, যন্ত্রণা ও বিপুল আর্থিক ক্ষতির জন্য দায়ী চিন।

স্মিত বলেন, ‘চিন গোটা বিশ্বকে ভাইরাস ও তার ভয়াবহতা নিয়ে মিথ্যা কথা বলেছে। রোগকে ছড়িয়ে পড়া থেকে আটকানোর চেষ্টা করেনি।’ তাঁর দাবি, চিনের আধিকারিকেরা, গবেষকরা এবং কমিউনিস্ট পার্টির সদস্যরা প্রত্যেকে ভুল বার্তা ছড়িয়েছে। তথ্য চেপে দেওয়া এবং ভাইরাসের ভয়াবহতা বোঝানো হয়নি বলেও অভিযোগ তুলেছেন তিনি।

আমেরিকার এই স্টেটে করোনায় মৃতের সংখ্যা ২১৫। আক্রান্তের সংখ্যা ৫,৯৬৩। স্মিত বলেন, ‘মিসৌরিতে ভয়ঙ্কর প্রভাব ফেলেছে করোনা। অনেকের মৃত্যু হয়েছে। ছোট ব্যবসা বন্ধ হয়ে গিয়েছে। খাবার পাচ্ছেন না অনেকে।’

TheLogicalNews

Disclaimer: This story is auto-aggregated by a computer program and has not been created or edited by TheLogicalNews. Publisher: Kolkata 24×7

(Visited 7 times, 1 visits today)
The Logical News

FREE
VIEW
canlı bahis